Key messages for World Investor Week A smart investor:

  • Verifies that an investment professional is licensed
  • Conducts research on a product before investing
  • Assesses the impact of fees when choosing an investment
  • Understands that risk exists in all investments
  • Avoids “get rich quick” and “can’t lose” schemes
  • Recognizes the power of compound interest
  • Recognizes the importance of diversification
  • Plans for and invests according to his/her future needs and goals
  • Recognizes the benefit of long-term, regular and diversified investment
  • Understands the risks that are associated with initial coin offerings and crypto-assets in general and is careful in deciding whether to invest in these products
  • Does not forget about the importance of due diligence when considering investments in online and digital environments
  • Recognizes the red flag warning signs of online investment fraud
  • Never invests based solely on a celebrity endorsement
  • Knows that most legitimate firms do not allow their customers to use credit cards to make investments

বিনিয়োগকারীদের জন্য করণীয়

  • আশাতিরিক্ত লাভজনক বিনিয়োগ প্রলোভন থেকে সাবধান থাকুন
  • আপনার আয়-ব্যয়ের সাথে সামঞ্জস্য রেখে ব্যক্তিগত বাজেট ও আর্থিক পরিকল্পনা করুন
  • বিভিন্ন বিনিয়োগ পণ্যের বা খাতের ঝুঁকি সম্পর্কে জানুন
  • সঞ্চয় থেকে কোন সিকিউরিটিজ বা খাতে কত বিনিয়োগ করবেন সিদ্ধান্ত নিন
    পর্যাপ্ত বিচার-বিশ্লেষণ করে বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত নিন
  • আপনার হিসাবে রক্ষিত সিকিউরিটিজ ও অর্থের বিষয়ে সচেতন থাকুন
    বিনিয়োগ সংক্রান্ত আইন-কানুন সম্পর্কে অবগত হন এবং বিধি-নিষেধ মেনে চলুন
  • পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে কোম্পানীর আর্থিক অবস্থা, ব্যবস্থাপনা এবং অন্যান্য বিষয়ে ধারণা নিন
  • বাজার মধ্যস্থতাকারী প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে খোজ-খবর নিয়ে বিনিয়োগ হিসাব খুলুন
  • বিনিয়োগ সিদ্ধান্ত আপনি নিজে নিন, প্রয়োজনে বিনিয়োগ বিশ্লেষকের সহায়তা নিন
  • আপনার আর্থিক পরিকল্পনা অনুযায়ী বিভিন্ন ধরনের বিনিয়োগের মেয়াদ নির্ধারণ করুন
  • ঋণ গ্রহণের পূর্বে আপনার ঋণ পরিশোধের সঙ্গতি এবং ঋণের শর্তসমূহ বিবেচনা করে সিদ্ধান্ত নিন
  • আপনার কোন অভিযোগ থাকলে স্টক এক্সচেঞ্জ বা কমিশনকে অবহিত করুন
    সময়মত বিনিয়োগ এবং বিক্রয় সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুন

বিনিয়োগকারীদের জন্য বর্জনীয়

  • আপনার সঞ্চয়ের পুরোটা একই খাতে বিনিয়োগ করবেন না
  • আপনার সংগতির অতিরিক্ত ঋণ গ্রহণ করবেন না
  • কারো দ্বারা প্ররোচিত হয়ে বিনিয়োগ করবেন না
  • প্রচলিত গুজবের ভিত্তিতে বিনিয়োগ করবেন না
  • নিশ্চিত লাভের আশায় বিনিয়োগ করবেন না
  • অনিশ্চিত তথ্য বা চটকদার বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে বিনিয়োগ করবেন না
  • অযৌক্তিক অতিরিক্ত দরে বিনিয়োগ করবেন না
  • প্রত্যেকটি বিনিয়োগে ক্ষতির ঝুঁকি রয়েছে। ঝুঁকি বিশ্লেষণ না করে বিনিয়োগ করবেন না
  • জ্ঞাতসারে বে-আইনী বা অননুমোদিত কোন খাতে বিনিয়োগ করবেন না
  • অপ্রাতিষ্ঠানিক কোন খাতে বিনিয়োগ করবেন না
  • কোন অনুমোদনহীন দলিলে বা ফরম এ স্বাক্ষর করবেন না
  • কোন চটকদার বিজ্ঞাপনে আকৃষ্ট হয়ে বিনিয়োগ করবেন না
  • নিয়ন্ত্রকের অনুমতি ব্যতীত ইস্যুকৃত কোন সিকিউরিটিজ বা চুক্তিপত্র, যার আয়ের হার অনেক বেশী ও কম ঝুঁকিপূর্ণ বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও বিনিয়োগ করবেন না

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য

পুজিবাজারে বিনিয়োগ করলে বাজারের গতি প্রকৃতির কারনে লাভ হবে না ক্ষতি হবে তার নিশ্চয়তা কেউ দিতে পারবে না। বিনিয়োগকারীদের পুঁজির নিরাপত্তা (বিনিয়োগ ঝুকি ব্যাতীত) নিজেকে নিশ্চিত করতে হবে। আপনি যদি পুঁজিবাজারের বিনিয়োগকারী হন অথবা বিনিয়োগ করতে চান তাহলে নিম্নলিখিত বিষয়গুলি আপনার জানা দরকার:

বিও (সেন্ট্রাল ডিপোজিটরিতে বা সিডিবিএলে) হিসাব খোলার সময় সঠিক তথ্য দিন:
পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের পূর্বে যেকোন ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারীদের সাথে হিসাব খুলতে হবে। আপনি যদি ব্যাক্তি শ্রেনীর বিনিয়োগকারী হন তবে যে কোন ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারীর সাথে আপনি নিজ নামে একটি এবং যৌথ নামে আরেকটি হিসাব খুলতে পারবেন। বর্তমানে ৩৫২টি নিবন্ধিত Full service ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারী এবং ৯৭ টি নিবন্ধিত Custodian ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারী আছে জার তালিকা আপনি সিডিবিএল এর ওয়েবসাইটে পাবেন। https://www.cdbl.com.bd/dp_info.php

হিসাব খোলার সময় সকল তথ্য সঠিক হওয়া প্রয়োজন। তা না হলে পরবর্তীতে আপনি সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। বিশেষত আপনার মোবাইল নাম্বার সঠিক হওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ কারন আপনার হিসাবের সকল ডেবিট এবং ক্রেডিট এন্ট্রির তথ্য আপনি বিনা খরচে মোবাইলে এসএমএস এর মাধ্যমে পাবেন। তাছাড়া নিম্নলিখিত কার্যক্রমের ক্ষেত্রে আপনার মোবাইল নাম্বারে এসএমএস এলার্ট বিনা খ্রচে স্বয়ংকৃতভাবে আপনি পাবেন। যেমনঃ

  • বিও হিসাব খোলা।
  • বিও হিসাবে ব্যাংক হিসাব খোলা।
  • বিনিয়োগকারীর নাম পরিবর্তন।
  • বিনিয়োগকারীর ব্যাংক হিসাব পরিবর্তন।
  • বিনিয়োগকারীর ব্যাংকের নাম পরিবর্তন।
  • বিও হিসেবে যে মোবাইল নাম্বার দেয়া হয়েছে তার পরিবর্তন হলে (পুরাতন এবং নতুন দুই মোবাইল নাম্বারেই এসএমএস SMS এলার্ট যাবে)।
  • বিও হিসাব বন্ধ হলে।

যদি বিও নাম্বার আপনার সঠিক মোবাইল নাম্বার না থাকে তবে এর কিছুই আপনি জানতে পারবেন না। অতএব বিনিয়োগকারীদের বিও নিরাপত্তার স্বার্থে সঠিক মোবাইল নাম্বার অন্তর্ভুক্ত করা জরুরী।
যেহেতু বর্তমানে বহু কোম্পানি দেশের প্রচলিত পেমেন্ট সিস্টেম ব্যাবহার করে লাভ্যাংশ প্রেরন করে থাকে সেহেতু বিও হিসাবে সঠিক ব্যাংক হিসাব নাম্বার থাকা জরুরী অন্যথায় বিনিয়োগকারীরা লাভ্যাংশ পেতে ভোগান্তির শিকার হতে পারেন।
বিও হিসেবে আপনার ঠিকানা ভুল থাকলে আপনি প্রেরিত লাভ্যাংশ ওয়ারেন্ট এবং বার্ষিক সাধারন সভার নোটিশসহ কম্পানি থেকে তথ্য প্রাপ্তিতে অসুবিধায় পড়তে পারেন। তাই বিও হিসেবে আপনার সঠিক ঠিকানা অন্তর্ভুক্ত করুন।
বর্তমানে অনেক কোম্পানি ইমেইলে বার্ষিক সভার নোটিশ ও বার্ষিক প্রতিবেদন প্রেরন করে থাকে। তাই আপনার বিও হিসেবে আপনার সঠিক ও যথাযথ ইমেইল ঠিকানা থাকাও দরকার। ইমেইল না থাকলে নতুন ইমেইল খুলে তা বিও হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করুন।
আপনার যদি আয়কর নিবন্ধন নাম্বার থাকে তবে তা আপনার বিও হিসেবে অন্তর্ভুক্ত করুন। আপনার বিও হিসেবে আয়কর নিবন্ধন নাম্বার অন্তর্ভুক্ত থাকলে আপনার লাভ্যাংশের উপর উৎস কর কর্তনের হার কম হবে।

আপনি যদি পূর্বেও বিও হিসাব খুলে থাকেন তবে যেকোন সময়ে প্রয়োজনীয় প্রমাণাদি ডিপোজিটরি অংশগ্রহণকারীকে প্রদর্শনপূর্বক আপনার বিও হিসেবে এই সকল তথ্য অন্তর্ভুক্ত/আপডেট করে নিতে পারেন।

অনলাইনে আপনার বিও হিসাবের সিকিউরিটি ব্যালেন্স ইনকোয়ারী:
সিডিবিএল এর ওয়েবসাইটে গিয়ে https://www.cdbl.com.bd/ বাৎসরিক ২০০/- (দুইশত) টাকা ফি দিয়ে আপনি নিবন্ধন করতে পারেন। নিবন্ধন ও বাৎসরিক ফি আপনি অনলাইনের (সিডিবিএল এর ওয়েবসাইট ব্যাবহার করে) মাধ্যমে প্রদান করতে পারবেন। এইরূপ নিবন্ধন করলে সিডিবিএল আপনাকে ইমেইলে আপনার হিসেবে প্রবেশের লগিন ডিটেইল পাঠাবে, যার মাধ্যমে আপনি সিডিবিএল এর ওয়েবসাইট থেকে আপনার বিও হিসেবের বর্তমান স্থিতি এবং গত একমাসের লেনদেনের তথ্য পাবেন। এই সেবা গ্রহণের জন্য আপনাকে সিডিবিএল এর কার্যালয়ে ব্যাক্তিগতভাবে যেতে হবেনা।

পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ নিষ্পত্তি:
বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ এন্ড একচেঞ্জ কমিশন পুঁজিবাজারে বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ নিষ্পত্তির জন্য একটি অনলাইন মডিউল চালু করেছে যার নাম কাস্টমার কমপ্লেইন এড্রেস মডিউল (সিসিএএম) বা বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ নিষ্পত্তির মডিউল।

বিএসইসি এর ওয়েবসাইট www.sec.gov.bd এর প্রথম পৃষ্ঠায় ডানদিকে Customer Complaint Address Module বিনিয়োগকারীদের অভিযোগ নিষ্পত্তির মডিউল নামে একটি আইকন রয়েছে। উক্ত আইকনে ক্লিক করে আপনি এই মডিউলে প্রবেশ করতে পারেন এবং আপনার অভিযোগ অনলাইনে দাখিল করতে পারবেন।

অভিযোগ দাখিল করলে আপনার প্রদত্ত ইমেইলে আপনি একটি প্রাপ্তি স্বীকারপত্র পাবেন যাতে আপনার অভিযোগের আইডি দেয়া থাকবে। প্রদত্ত আইডি দিয়ে এই সিস্টেমে আপনার দাখিলকৃত অভিযোগের বর্তমান অবস্থা আপনি জানতে পারবেন। যদি দাখিলকৃত অভিযোগের ফয়সালায় আপনি সন্তুষ্ট না হন তাহলে আপনি আপিলও দাখিল করতে পারেন এই মডিউলে।

We are in touch with other new companies entering into the market.